অনলাইনে আয়

জেনে নিন কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।

যারা ঘরে বসে সহজে অনলাইন থেকে টাকা আয়  করতে চান তাদের জন্য এই লেখাটি।

বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে শুধুমাত্র ঘরে বসে অনেক টাকা ইনকাম করা যায় । অনেকে অনলাইনের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করে প্রতিনিয়ত নিজ ঘরে অবস্থান করে হাজার হাজার টাকা আয় করছে। তাহলে আপনি নয় কেন?

আপনি চাইলে বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করে  নিজে অনলাইনের মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারেন। আজ আমি আপনাদের  কিছু অনলাইন উপার্জনের মাধ্যম এর কথা জানাব। যেগুলো ব্যবহার করে অতি সহজেই আপনি অনেক টাকা উপার্জন করতে পারবেন। তবে সেজন্য অবশ্যই আপনার কিছু দক্ষতা থাকতে হবে।

তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক অনলাইনে আয়ের মাধ্যমগুলো-

১) ব্লগের মাধ্যমে টাকা আয়:

যেখানে কেউ চাইলে ব্লগিংয়ের মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। এর জন্য শুধু আপনার একটি ব্লগ সাইট আর ভালো লেখালেখির অভ্যাস থাকতে হবে।
এখন প্রশ্ন হলো কিভাবে ব্লগ সাইট খুলবেন তাইতো?
এর জন্য 10 মিনিটের বেশি সময় লাগবে না। মাত্র 10 মিনিটে নিয়ে ব্লগে blogger.com থেকে একটি ফ্রি ব্লগ সাইট খুলতে পারবেন। এতে কোন খরচ লাগবে না। কিন্তু আপনার নিজস্ব ব্লগ সাইট খুলতে হলে অবশ্যই কিছু টাকা খরচ করতে হবে নিজস্ব ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয়ের জন্য।
ব্লক তৈরি হয়ে গেলে আপনি বিভিন্ন কন্টেন্ট (গল্প ,কবিতা, প্রবন্ধ ,তথ্যগুলো প্রচারণা, বুক রিভিউ) ইত্যাদির মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। এর জন্য অবশ্যই আপনার ব্লগ থেকে জনপ্রিয় করতে হবে ভিজিটর বাড়িয়ে। কারণ ভিজিটর সংখ্যা যত বাড়বে view এর সংখ্যাও তত বাড়বে। আর এই ভিউয়ের সংখ্যার উপর ভিত্তি করে আপনার আয় নির্ধারিত হবে। বিস্তারিত

 

২. ইউটিউব ভিডিও এর মাধ্যমে-

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে ইউটিউব। আর এর মাধ্যমে ভিডিও তৈরি করে তা প্রদর্শনের মাধ্যমে অনেক টাকা উপার্জন করা যায়। তবে এর জন্য অবশ্যই একটি নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলের প্রয়োজন হবে।

কিভাবে তৈরি করবেন-
এটি তৈরি করা খুবই সহজ এর জন্য আপনাকে গুগলের youtube.com এগিয়ে জিমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করতে হবে। চ্যানেল তৈরি হয়ে গেলে আপনি আপনার তৈরীকৃত যে কোন ভিডিও আপলোড এর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

কি ধরনের ভিডিও আপলোড করতে পারবেন?
আপনি আপনার পছন্দমত (কমিক, টিউটরিয়াল, ডান্স) ইত্যাদি যে কোন ভিডিও আপলোড করতে পারবেন তবে আপলোডকৃত ভিডিওটি অবশ্যই চ্যানেলের নাম অনুযায়ী হতে হবে। অর্থাৎ যে নামে চ্যানেলটি ওপেন করেছেন সেই ক্যাটাগরির ভিডিও আপলোড দিতে হবে।
শুধুমাত্র ভিডিও আপলোড করলে আয় শুরু হবে না এজন্য অবশ্যই গুগোল অ্যাডসেন্সে আবেদন করতে হবে আর আপনি তখনই আবেদন করতে পারবেন যখন আপনার চ্যানেল টি জনপ্রিয় হবে।
এর জন্য ভিজিটর সংখ্যা বাড়াতে হবে। ভিজিটর সাবস্ক্রাইব সংখ্যা যত বেশি হবে আপনার চ্যানেলটি ততো বেশি জনপ্রিয় হবে।
চ্যানেলে ভিজিটর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে আপনি ইউটিউবের মনিটাইজেশন অপশনে গিয়ে এপ্লাই করে এনাবল করলেই গুগল এডসেন্স তাদের বিভিন্ন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট আপনার ভিডিওতে দেখাবে। যখন কেউ আপনার ভিডিও দেখার সময় তাদের দেয়া অ্যাডভার্টাইজমেন্ট গুলো দেখবে তখনই আপনার আয় শুরু হবে। যত বেশি ভিজিটর যত বেশি আয় হবে। এজন্যই ভিজিটর সংখ্যা বৃদ্ধি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

 

৩. ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে-

আজকাল ঘরে বসেই ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে অনেক আয় করা যায়। এ বাংলাদেশ সরকার ফ্রি প্রসিক্ষন এর ব্যবস্থা রেখেছে।  ফ্রিল্যান্সিং এমন একটি সাইট যেখানে বায়াররা তাদের কাজের জন্য অভিজ্ঞ লোকদের হায়ার করে থাকে।
এখানে কাজ করার জন্য প্রচুর স্পেস রয়েছে। কেউ যদি কম্পিউটারের বিভিন্ন মাধ্যমে সম্পর্ক দক্ষ হতে পারে তাহলে সহজেই এ মাধ্যমে কাজ পেতে পারে। একজন ফ্রিল্যান্স কাজ করে মাসে ৫00 থেকে ২000+ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারে।
যারা কোডিং, ওয়েব ডিজাইন, গ্রাফিক ডিজাইন, ডাটা-এন্ট্রি সহ ইত্যাদি কাজে পারদর্শী তারা সহজেই এমাধ্যমে ঘরে বসেই টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারে। কয়েকটি ফ্রিল্যান্সিং সাইট হচ্ছে fiverr.com upwork.com freelancer.com worker.com.

 

৪. ভার্চুয়াল সহকারি হিসেবে-

ভার্চুয়াল সহকারি বলতে ভার্চুয়াল লাইফে অন্যের হয়ে তার কাজটি করে দেয়ার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন কে বোঝায়। আজকাল ভার্চুয়াল জগতে কর্মক্ষেত্রের ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। অনেক প্রতিষ্ঠানই দক্ষতার উপর ভিত্তি করে তাদের কাজের জন্য এসিস্টেন্ট নিয়োগ দিয়ে থাকে। ভার্চুয়াল সহকারীর কাজের মধ্যে সাধারণত ফোনকল, ইমেইল যোগাযোগ, ইন্টারনাল রিসার্চ এডিটিং রাইটিং , ডাটা এন্ট্রি, টেক সাপোর্ট, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবস্থাপনার মত কাজ থাকে।
কয়েকটি ভার্চুয়াল সরকারি সাইট হলো freelancer.com upwork.com peopleperhour.com, match.com  , uAssistMe.com.

পড়ুন বাংলা ব্লগ লিখে অনলাইন থেকে টাকা আয়

 

৫. ওএলএক্স ও কুইকার এ পণ্য বিক্রয় করে-

ওএলএক্স ও কুইকার হচ্ছে অনলাইনে পুরনো জিনিস ক্রয় বিক্রয়ের অন্যতম জনপ্রিয় দুটি ওয়েবসাইট। এগুলোতে আপনি আপনার অব্যবহৃত যেকোনো পুরনো জিনিস বিক্রয়ের মাধ্যমে সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন মাধ্যম থেকে পুরনো জিনিস কম দামে ক্রয় করে সেগুলো এখানে বিক্রি করে টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

 

৬. অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহার করে-

আপনার অ্যান্ড্রয়েড সেটের প্লে স্টোর থেকে আর্নিং অ্যাপস বা রিচার্জ অ্যাপস লিখে সার্চ দিলেই অনেকগুলো অ্যাপস পাওয়া যাবে যেগুলো রিয়াল মানি প্রদান করে । এই অ্যাপস গুলো ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিবেন। সেগুলো ওপেন করে রেজিস্টার এর প্রয়োজন হলে রেজিস্টার করবেন সঠিক তথ্য দিয়ে। এরপর তারা আপনাকে বিভিন্ন কাজ দিবে ( অ্যাপ ডাউনলোড করা, রেফার করা, ভিডিও দেখা) ইত্যাদি যা করার মাধ্যমে আপনাকে টাকা দেয়া হবে।
পেমেন্ট সিস্টেম: ফ্রি মোবাইল রিচার্জ, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ট্রান্সফার ইত্যাদি।
কিছু জনপ্রিয় আর্নিং অ্যাপস হলো -ট্রু ব্যালেন্স, পকেটমানি, তাস্কবাকস।

 

৭. শর্ট লিংক ওয়েবসাইটের মাধ্যমে-

অনেকেই হয়তো জানেন না শর্ট লিংক এর মাধ্যমেও আয় করা যায। জী, আমি সত্যি বলছি আর আপনিও ঠিক দেখছেন। কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে এমন যেগুলোতে আপনি শুধুমাত্র যেকোন সাইটের লিংক ছোট করার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।
লিংক কোথায় ছোট করবেন ?
তাদের ওয়েবসাইটে গেলে এ ধরনের একটি অপশন রয়েছে যাতে আপনার বাছাইকৃত বড় নামটি বসিয়ে দিলেই সেটি ছোট হয়ে যাবে। আপনার অন্য কোন কষ্ট করতে হবেনা ।
এই উপায়ে টাকা আয় করার জন্য প্রথমে আপনার কিছু শর্ট লিংক ওয়েবসাইটে গিয়ে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর যত লিংক শার্ট করবেন তত ইনকাম হবে।
বেস্ট ওয়েবসাইট shorte.st, adf.ly, blv.me,AL.LY.

 

৮. ছবি তোলার মাধ্যমে-

অনেকেরই বিভিন্ন ছবি তোলার শখ রয়েছে। বলতে গেলে ছবি তোলা যেন তাদের জন্য একটি নেশা। যদি কারো এই ধরনের ছবি তোলার নেশা থাকে তাহলে এই ছবি দিয়ে মাসে ভাল এমাউন্ট আয় করা যায়।
ভালো উন্নত মানের ক্যামেরা দিয়ে প্রকৃতি, স্থান, মানুষ, খাবার ইত্যাদি যেকোনো কিছুর ভালো ছবি তুলে সেগুলো অনলাইনে বিক্রির মাধ্যমে টাকা আয় করা যায।
এমন কিছু সাইট হচ্ছে: শাটেরস্টক, ফটোলিয়া,আইস্টক ফটো, ফটোবিককেট ইত্যাদি।

 

৯. ক্যাপচা সলভের হিসেবে-

অনলাইন উপার্জনের সবচেয়ে সহজ একটি পদ্ধতি ক্যাপচা সলভ। এ পদ্ধতিতে ক্যাপচার ইমেজ পড়ে সেটি বুঝে খালি ঘরে সেটি লিখতে হবে। এখানে ভালো আয় করার জন্য দ্রুত টাইপ করা জানতে হবে। গুগলে সার্চ দিলে অনেক গুলো ক্যাপচা সাইট পাওয়া যাবে যেগুলোতে সাইনআপ করে কাজ করতে পারবেন।

আশাকরি লিখাটি আপনাদের উপকারে আসবে কোন একজনও যদি আমার লিখাটি পড়ে উপকৃত হন তাহলেই আমার স্বার্থকতা। তো বন্ধুরা আর দেরি কেন?
আপনাদের পছন্দের মাধ্যমটির বেছে নিয়ে আজ থেকেই শুরু করুন আপনাদের নতুন আয়ের পথ চলা।

ভালো থাকবেন সবাই।

One thought to “জেনে নিন কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *