Blog Write

একটি আকর্ষণীয় ও সুন্দর ব্লগ লেখার কৌশল ।

বর্তমান বিশ্বে ব্লগিং হচ্ছে জনপ্রিয় একটি আয় এর উৎস। যাদের লেখালেখির ওপর ভালো দক্ষতা রয়েছে তারা যেমন এর মাধ্যমে ঘরে বসে অর্থ উপার্জন করছে। ঠিক তেমনি আরো অনেকেই বিষয়টিকে তাদের আয়ের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিচ্ছে। নতুন যারা এই বিষয়ের সাথে জড়িত হচ্ছে তাদের অনেকেই  জানে না বা বুঝতে পারে না, কিভাবে একটি ব্লগ লিখা শুরু করতে হয় ও শেষ করতে হয়।

তাছাড়া একটি লেখা শুধু শুরু ও শেষ করার নিয়ম জানলেই তা পাঠকপ্রিয় হয় না। পাঠকপ্রিয় না হলে সেটি লিখে তো আর কোনো লাভ হবে না। তাই পাঠকপ্রিয় করতে হলে ব্লগ টি প্রতিটি বিষয়টিকে অবশ্যই পাঠকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে হবে । আমার পোস্টটি তে আজ আমি আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব, কিভাবে একটি লেখাকে আকর্ষণীয় সুন্দর ও চমৎকার ভাবে পাঠকপ্রিয় পাঠকদের কাছে তুলে ধরেন ধরবেন।

তাহলে চলুন জেনে নেওয়া জাক  কিভাবে একটি আকর্ষণীয় ও সুন্দর ব্লগ লিখতে হয়।

প্রথমে আমরা জানাবো কয়টি ধাপে আমার ব্লগটি লিখা শুরু ও শেষ করব একনজরে ধাপগুলো হলোঃ

  • শিরোনাম
  • সূচনা
  • মূল লেখা/ বর্ণনা /বিস্তারিত
  • উপশিরোনাম
  • উপসংহার বা মন্তব্য

ধাপগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত:

০১. শিরোনাম: আপনি যে বিষয়ের ওপর লিখবেন তার ওপর একটি সুন্দর শিরোনাম লিখবেন সেটি দেখলেই একজন পাঠক জানতে পারবে লেখাটি আসলে কোন বিষয় নিয়ে লেখা হয়েছে।

০২. সূচনা: এ ধাপে আপনি অল্প কথায় যেমন কিছু লিখবেন যা আপনার পাঠক কে পরবর্তী ধাপটি পড়তে আগ্রহী করে তুলবে অবশ্যই যা লিখবেন সেই বিষয়ের সাথে জাতে সংগতিপূর্ণ থাকে  ঠিক তেমন লিখবেন।

০৩. মূল লেখা: এই ধাপে আপনি আপনার বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা দিবেন বিষয়টি সম্পর্কে যাবতীয় সকল তথ্য উপাত্ত জানা-অজানা ইত্যাদি বিস্তারিত বর্ণনা ও সংযোজন এখানে করতে হবে এবং তা অবশ্যই কয়েকটি  প্যারাগ্রাফ বা পয়েন্ট আকারে লিখবেন।

০৪. উপশিরোনাম: এই ধাপে সাধারণত শিরোনামের সাথে মিল রেখে মূল অংশের আলোচিত বিষয়গুলো কি ছিল পাঠক কি জানতে পারবে ইত্যাদি বিষয়ে ছোট একটি প্যারাগ্রাফ এর মাধ্যমে ধারণা দেওয়া হয় যা পাঠক কে বিস্তারিত বিষয়টি সম্পর্কে একটি সহজ ধারণা দিতে পারে

০৫. উপসংহার: এটি ব্লগ এর সর্বশেষ ধাপ এখানে পাঠকের প্রতি আপনার চমৎকার একটি মন্তব্য প্যারাগ্রাফ আকারে তুলে ধরবেন যার মধ্যে পাঠকদের প্রতি শুভকামনা মোটিভেট করা পরবর্তীতে আপনার কোন ব্লকটি প্রকাশিত হবে সেটা জানানো যেতে পারে ইত্যাদি বার্তা থাকবে।

এতক্ষণ আমরা জানালাম কোন ধাপগুলো অনুসরণ করে একটি ব্লগ লিখা সম্পন্ন করা উচিত। কিন্তু শুধুমাত্র ধাপগুলো অনুসরণ করে আপনি হয়তো একটি সুন্দর ব্লগ উপস্থাপন করতে পারবেন। কিন্তু তা হয়তো পাঠকদের আকর্ষণ না হতে পারে। আসলে পাঠকদের আকর্ষণ করার জন্য ব্লগের প্রতিটি ধাপেই সঠিক সুন্দর ও আকর্ষণীয় তথ্য দিয়ে ব্লগ কে আকর্ষণীয় করে তুলতে হবে। প্রত্যেক প্রফেশনাল ব্লগার তাদের ব্লগকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য কিছু কৌশল অবলম্বন করে থাকে। আজ আমি আপনাদের সাথে আমার ব্যবহৃত অজানা কৌশল গুলো শেয়ার করব তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ব্লগ লেখার আকর্ষণীয় কিছু কৌশল।

০১. পরিকল্পনা করা:

কোন কাজ শুরু করার পূর্বে অবশ্যই একটা পরিকল্পনা করতে হবে অন্যথায় কাজটি ভালাভাবে সম্পাদন করা কখনোই সম্ভব হবে না। ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রেও তাই আপনি কোন বিষয় নিয়ে লিখতে পারবেন বা লিখতে চান সেই বিষয়টি সম্পর্কে আপনার কতটুকু ধারণা আছে, বর্তমানে বিষয়টির চাহিদা কেমন ভবিষ্যতে ওই বিষয়ের ওপর বিভিন্ন টপিক নিয়ে লিখতে পারবেন কিনা ইত্যাদি বিষয়ে পরিকল্পনা করে লেখা শুরু করতে হবে। মনে রাখবেন পরিকল্পনাবিহীন কাজ শুরু এর কলস বিহীন পানি আনতে যাওয়ার মতই অবস্থা হবে।

 

০২. আকর্ষণীয় শিরোনাম:

ভালোভাবে প্রথমে জেনেছেন ব্লগের প্রথম ধাপটি হচ্ছে একটি আকর্ষণীয় শিরোনাম দেওয়া এখন আপনার ব্লগ পাঠকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে চাইলে যে কোন সাধারণ শিরোনাম দিলে হবে না এর জন্য অবশ্যই একটি আকর্ষণীয় শিরোনাম বাছাই করতে হবে।

 

০৩. রিসার্চ বা অনুসন্ধান করা:

আপনি যে বিষয় নিয়ে লিখবেন সে বিষয়ের ওপর ভালো দক্ষতা আনার জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রচুর রিচার্জ করতে হবে। এই অনুসন্ধান এর জন্য আপনি গুগলকে বেছে নিতে পারেন, সেখানে আপনি অনেক তথ্য পাবেন। রিসার্চ ছাড়া কখনোই একটি ভাল আর্টিকেল এর ব্লগ তৈরী করতে পারবেন না। আপনার ব্লগকে সমৃদ্ধ করতে ও তথ্য বহুল করে পাঠকপ্রিয় অর্জনের গবেষণা এর কোন বিকল্প নাই।

০৪. সঠিক বানান প্রয়োগ:

সবসময় বানান সঠিক হচ্ছে কিনা সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে লেখায় যদি প্রচুর ভুল বানান থাকে তাহলে পাঠকরা পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

০৫. ব্যাকরণ এর শুদ্ধ প্রয়োগ:

যেকোনো লিখাতে ব্যাকরণ এর শুদ্ধ প্রয়োগ অবশ্যই বজায় রাখতে হবে কারণ এতে অনেক সময় বাক্যটি দেখতে পড়তে বিদঘুটে লাগবে। যদিও বাংলা আর্টিকেল এর ব্যাকরণ গত তেমন একটা সমস্যা হয়না, কিন্তু ইংরেজিতে যারা আর্টিকেল লিখবেন তাদের অবশ্যই ব্যাকরণ এর শুদ্ধ প্রয়োগ এর দিকে সতর্ক থাকতে হবে।

০৬. ফিচার ইমেজ:

লিখার সাথে সংগতি রেখে যদি একটি ইমেজ যোগ করা হয়, তাহলে তা আপনার আর্টিকেলের আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলবে। বেশিরভাগ পাঠকই কিন্তু একটি সুন্দর ছবি দেখে ব্লগ এর প্রতি আকৃষ্ট হয় ও তা পড়তে আগ্রহী করে। যেকোন সুন্দর ও মানসম্পন্ন ছবির প্রতিকৃতি মানুষকে বিষয়টি সম্পর্কে আগ্রহী করে তুলতে সাহায্য করে।

০৭ পরিসংখ্যান যোগ:

যেকোনো বিষয়ে পরিসংখ্যান করার সুযোগ থাকে সেগুলোতে পরিসংখ্যান যোগ করলে তা আরো বেশি তথ্যবহুল হবে ও পাঠক প্রিয় হবে।

০৮ সংগৃহীত তথ্য সমূহ উল্লেখ:

যে বিষয়টি সম্পর্কে লিখবেন সে বিষয়ে যদি আন্তর্জাতিক সেক্টর থেকে কোন তথ্য পেয়ে থাকেন যা অনেককে জানতে আগ্রহী করে তুলবে তাহলে এই ধরনের তথ্য খুঁজে বের করে তা আপনার ব্লগে প্রকাশ করতে পারেন তার তথ্য সমূহ উল্লেখ সহ অতিরিক্ত তথ্য প্রদান আপনার ব্লগ থেকে আরো বেশি জনপ্রিয় করে তুলবে।

০৯. সীমিত শব্দের ব্যবহার:

আপনার লেখাটির যথাসম্ভব সীমিত শব্দ ব্যবহারের মাধ্যমে সংক্ষিপ্ত রাখার চেষ্টা করবেন কারণ পাঠকরা সাধারণত অতিরিক্ত বড় পোস্ট পড়ার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে না তবে অনেক সময় বিষয়ের উপর নির্ভর করে পোস্টের বর্ণনা বড় হতে পারে।

১০. সুন্দর উপসংহার :

আপনার একটা সুন্দর প্রাণোচ্ছল ও উদ্দীপিত মন্তব্য কিন্তু বর্তমান পাঠক কে আপনার অন্যান্য পোস্টগুলো পড়ার প্রতি আকৃষ্ট করে তুলতে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করবে। শেষ ভালো যার সব ভালো তার তাই শেষটাও ভালমত শেষ করতে হবে।

আজ আমি আপনাদেরকে একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় ব্লগ লেখার জন্য কী কী উপায় অবলম্বন করবেন সে সম্পর্কে একটা ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করি আমার লেখাটি থেকে আপনারা উপকৃত হবেন ও একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় ব্লগ তৈরী করতে পারবেন।

সম্পূর্ণ বিষয়টি আরো ভালোভাবে বোঝার জন্য আমার পোস্টে কে উদাহরন হিসেবে নিতে পারেন।

3 thoughts to “একটি আকর্ষণীয় ও সুন্দর ব্লগ লেখার কৌশল ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *