black Fridays

ব্ল্যাক ফ্রাইডে / কৃষ্ণ শুক্রবার।

ছরের পর বছর ব্ল্যাক ফ্রাইডে জনপ্রিয়তা বিদ্ধি পাছে,  তেমনি ২০১৬ তেও এর কোন বাতিক্রম হয় নাই। বিষ্ময়কর  ব্ল্যাক ফ্রাইডে  বিশ্বজুড়ে  বিশাল স্বীকৃতি অর্জন করেছে । সুতরাং চলুন এই সম্পর্কে বিস্তারিত যেনে নেই।

ব্ল্যাক ফ্রাইডে কী, কিভাবে এবং কেন এটা অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এবং কী প্রত্যাশা করছে ২০১৬ সালের জন্য ?

সংক্ষেপে “ব্ল্যাক ফ্রাইডে”
আমরা জেনেছি যে, “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” উদ্ভাবিত হয়েছিল ১৯৬০ খ্রীষ্টাব্দে ক্রিসমাসের কেনাকাটার মৌসুমকে বোঝাতে। ব্ল্যাক বা কালো শব্দটি ব্যবহারের কারন হিসেবে বলা হয় যে, কেনাকাটার মৌসুমে খুচরা বিক্রেতারা প্রচুর লাভ নথিভুক্ত করত তাদের কলমের লাল রঙে কালোতে পরিনত করে কারন তখনকার দিনের নথিভুক্ত করার রীতি অনুযায়ী ক্ষতি লেখা হত লাল কালিতে এবং মুনাফা লেখা হতো কাল কালিতে। এর পর থেকে কৃতজ্ঞকতা প্রকাশের পরের শুক্রবারটি উৎযাপন করা হয় একটি রোমাঞ্চকর ছুটিকালীন কেনাকাটার দিন হিসেবে।

অতীত কাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” পরিনত হয়েছে পুরো বছরের ব্যস্ততম কেনাকাটার সময় হিসেবে। এই রোমঞ্চকর দিনটি সাধারনত প্রতি বছর ২৩ শে নভেম্বর থেকে ২৯ শে নভেম্বরের মধ্যে কোন একদিন পালিত হয়। গত বছরেরটি পড়েছিল ২৭ শে নভেম্বর এ ২০১৬ সালের “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” পালিত হবে ২৫ শে নভেম্বর।

বেশিরভাগ দেশেই “ব্ল্যাক ফ্যাইডে” কে কেন্দ্রিয় বা জাতীয় ছুটির দিন হিসেবে গন্য করা হয় না, তবে যুক্তরাষ্টের কিছু কিছু অঙ্গরাজ্যে “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” সরকারি ছুটির দিন ঘোষনা করা হয় যেন, শ্রমিকেরা এই দিনের সুবিধা গ্রহন করে তাদের ইচ্ছানুযায়ী কেনাকাটা করতে পারে। এটি বিষ্ময়কর নয় যে, এমনটি যে সব অঙ্গরাজ্যে “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” কে ছুটির দিন হিসেবে ঘোষনা করে না সেখানে শ্রমিকেরা একদিনের ছুটি নেয় “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” এর উপলক্ষে ইচ্ছেমত কেনাকাটা করার জন্য।

“ব্ল্যাক ফ্রাইডে” ২০১৬  কীসের প্রত্যাশা

অতএব, আমরা জানি যে, “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” হল, কৃতজ্ঞতা প্রকাশের পরের শুক্রবার, যা ত্রিসমাসের ছুটির দিনের অধিকার চমৎকার ভাবে একত্র করে। যা সম্ভবত একটি উপযুক্ত বিবৃতি যার জন্য পুরো বিশ্বের লক্ষাধিক লোকজন ধারনা করে “ব্লাক ফ্রাইডে” ক্রিসমাসের কেনাকাটা, পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে সাক্ষাৎ, পরিবারের সাথে প্রমোদ ভ্রমন এবং আরো অনেক মজা করার মতো সুযোগ।

এখন আমরা জানি, “ব্লাক ফ্রাইডে” ২০১৬ সালে শেষ হয়ে যায়নি আমাদের টিভি প্রোগ্রামগুলো মল এবং দোকানের বিজ্ঞাপনে প্লাবিত হয় এবং ২০১৬, ২৫ শে নভেম্বর এর ব্লাক ফ্রাইডেতে গুডিজ ক্রেতাদের জন্য অপেক্ষা করছে আশ্চর্যজনক ছাড়।

কি কেনাকাটা করবেন?

লোকজন কেনাকাটা করে ক্রিসমাসের উপহার সামগ্রী, বাড়ির ব্যবহার্য বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” সেগুলোকে বিক্রি করে থাকে চমৎকার এবং প্রতিযোগীতা মূলক ছাড়ে দোকান গুলোতে এবং এমনকি প্রত্যেকটি বড় দোকান বা মল গুলোতে এই দৃশ্য দেখা যায়। এটা আমাদের আবার বলার প্রয়োজন আছে কী? বিশ্ব আধুনিকতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, বেশীরভাগ বিক্রি ইন্টারনেটের মাধ্যমে হচ্ছে, লোকজন বাড়িতে বসেই বিভিন্ন সুবিধা পাচ্ছে, এখনো ব্যবসা কারবারটা রয়েই গেছে।

 

 

এই ছুটির দিন আমাদের জন্য এবং এটা উপহার দেওয়ার সময় সুতরাং আমরা বুঝতে পারি কেন মানুষ “ব্ল্যাক ফ্রাইডের” সুবিধা কামনা করে খুব সাশ্রয়ী দামে বন্ধু পরিচিতদের এবং পরিবারের জন্য ভাল মানের উপহার কেনাকাটা করতে, আমি বলতে চাচ্ছি, কেন এখন পর্যন্ত এটি সাধারন মানুষের ক্রয়সীমার বাহিরে? সুতরাং আমরা ব্যপক হিসাব খরচ আশা করছি; আমি সর্বত্র অর্থনৈতিক পরিস্থির জন্য বলেছি গননা করতে কিন্তু আমাকে বিশ্বাস কর, যে “ব্লাক ফ্রাইডের” শশব্যস্ততা বন্ধ হবে না। মাঝেমধ্যে খুব স্বল্প বাজেটের মধ্যে আমাদের বাচ্চাদের জন্য কাপড় চোপড় কিনা আপত্তিকর হয়ে উঠে।

“ব্ল্যাক  ফ্রাইডের” সুবিধা গ্রহন করে সুদর্শন বাচ্চাদের পোশাক, খেলনা কিনতে এবং বাচ্চাদের জন্য একটি উত্তেজনাপূর্ন এবং স্মরনীয় ছুটির দিন হিসেবে নিশ্চিত করার জন্য একটি বড় সুযোগ। আপনাকে অবশ্যই পরিকল্পনা করতে হবে বিশেষ একটির জন্য অনেক জিনিসের মধ্যে, কিন্তু টাকা আপনাকে বাধ্য করে মানবতার সাথে যুদ্ধ করার জন্য ঠিক আছে; এটা উপযুক্ত সময় বিভিন্ন রকমের পোশাক, গহনা, সব রকমের কাপড় কিনার, খুবই স্বল্পদামে। আপনি এমনকি তাদের উপস্থাপনা অনুভ’তি আরো গভীর করতে আগে কিছুদিনের জন্য এই উপহার রাখতে পারেন, হুম. . . . . আমি কী আপনাকে কোন নির্দেশনা দিতে পারি অথবা কোন জিনিস?

 

সুতরাং “ব্ল্যাক ফ্রাইডে” মজায় ভরিয়ে তুলি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.